৬ই ফেব্রুয়ারি ২০১৪ প্রকাশিত হলো ব্লেন্ডারে রাঙ্গামাটি ঝুলন্ত ব্রীজ তৈরির টিউটোরিয়াল। - এই মাসের শেষে আসছে এনিমেশন এর ওপর আরেকটি সম্পূর্ণ নতুন টিউটোরিয়াল। কাজেই চোখ রাখুন ব্লেন্ডার দেশে...

কেন ব্লেন্ডার ?

ওপেন সোর্স বা উন্মুক্ত সফটওয়্যার আজ আমাদের তথ্য প্রযুক্তি জগতের একটি অপরিহার্য অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে । সার্ভার এর জগতে রাজত্ব করতো যে ওপেন সোর্স অপারেটিং সিস্টেম তা আজ অত্যন্ত ব্যবহার বান্ধব ও বিনোদন এ ভরপুর হয়ে আমাদের ঘরের ডেক্সটপে নিজের  জায়গা করে নিতে শুরু করেছে । স্মার্ট ফোন ও ট্যাবলেট কম্পিউটার এর দুনিয়ায় অপ্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছে লিনাক্স বেসড্  অপারেটিং সিস্টেম এন্ডড্রয়েড । ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর সেক্টরে ওপেন সোর্স সফটওয়্যার গুলো শীর্ষ অবস্থানে পৌঁছে গেছে অনেক আগেই । তথ্য প্রযুক্তি দুনিয়ায় বিচরণ করেন যারা, তাদের কাছে এই কথা গুলো হয়তো খুব বেশি নতুন মনে হবে না ।

কিন্তু থ্রিডি মডেলিং এবং এনিমেশন, গ্রাফিক্স ডিজাইন, আর্কিটেকচারাল ভিজুয়ালাইজেশন, ভার্চুয়াল এফএক্স এর মত বিষয় গুলোতেও যে এই ওপেন সোর্স সফটওয়্যার গুলো বিশ্ব সেরা এবং অত্যন্ত দামি কমার্শিয়াল সফটওয়্যার গুলোর সাথে প্রতিযোগিতায় নেমেছে তা হয়ত আমরা অনেকেই জানিনা । আমাদের দেশে থ্রিডি মডেলিং এবং এনিমেশন সেক্টরে দক্ষ জনশক্তি গড়ে উঠছে আস্তে আস্তে । নতুন কাজের সুযোগও তৈরি হচ্ছে প্রতিদিন । আর্কিটেকচার এবং ইন্টেরিওর ডিজাইন সেক্টরে থ্রিডি মডেলিং এবং এনিমেশনের রয়েছে অনেক সম্ভাবনা । টিভি চ্যানেল গুলোর সংখ্যা যেভাবে বাড়ছে তাতে প্রতিনিয়ত দক্ষ ভার্চুয়াল এফএক্স আর্টিস্ট এবং থ্রিডি আর্টিস্ট এর চাহিদা তৈরি হচ্ছে যা সামনে আরও বাড়বে ।

এরকম একটি প্রেক্ষাপটে blenderdesh.com এর যাত্রা শুরু যার মূল উদ্দেশ্য, ফ্রি-ওপেন সোর্স থ্রিডি মডেলিং সফটওয়্যার “ব্লেন্ডার” এর মানসম্মত বাংলা টিউটোরিয়াল তৈরির মাধ্যমে থ্রিডি মডেলিং এবং এনিমেশন সেক্টরে দক্ষ থ্রিডি আর্টিস্ট গড়ে তোলা ।

এখন প্রশ্ন আসতে পারে, কেন ব্লেন্ডার? কেন থ্রিডি স্টুডিও ম্যাক্স বা মায়া নয়? যেখানে আমাদের পুরো দেশের আর্ক ভিজ ইন্ডাস্ট্রি বা থ্রিডি মডেলিং এর প্রায় পুরোটাই ব্যবহার করছে বিশ্ব সেরা এই সফটওয়্যার গুলো এবং তাও প্রায় ফ্রি তে, যেখানে কিনা থ্রিডি স্টুডিও ম্যাক্স এর একটি অরিজিনাল কপির দাম ৩,৫০০ ইউ এস ডলার এবং যা কিনা প্রতি বছর লাইসেন্স রিনিউ করতে হয়? আসুন উত্তর গুলি খোঁজার চেষ্টা করি ।

১) ব্লেন্ডার সফটওয়্যারটি “ব্লেন্ডার ফাউন্ডেশন” নামের একটি নেদারল্যান্ড ভিত্তিক অলাভজনক অর্গানাইজেশন ডেভেলপ করে এবং যেটি সম্পূর্ণ ফ্রি-ওপেন সোর্স একটি সফটওয়্যার ।
 
২) ব্লেন্ডার একটি ক্রস প্ল্যাটফরম সফটওয়্যার । অর্থাৎ উইন্ডোজ, ম্যাক, ও ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে ওঠা অপারেটিং সিস্টেম উবুন্টু/লিনাক্স প্লাটফর্মের সবগুলিতেই আমরা এটি রান করতে পারবো ।
 
৩) ব্লেন্ডার একটি অত্যন্ত শক্তিশালী থ্রিডি কন্টেন্ট তৈরির সফটওয়্যার যা দিয়ে আমরা একাধারে থ্রীডি মডেলিং, এনিমেশন, ক্যারেকটার মডেলিং ও এনিমেশন, গেম ডেভেলপমেন্ট, রিগিং, fluid এবং smoke সিমুলেসন, particle সিমুলেসন, রিয়েল টাইম রেন্ডারিং, ক্যমেরা ট্র্যাকিং, কম্পোজিটিং এবং ভিডিও এডিটিং এর মত কাজগুলি করতে পারি ।
 
৪) পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করার কারণে আমরা অনেক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হই, যার মধ্যে সবচেয়ে বড়টি হচ্ছে ইউজার কমিউনিটি বা ইউজার ফোরাম ব্যবহার না করতে পারা বা হেল্প ও সাপোর্ট না নিতে পারা । ব্লেন্ডার এর রয়েছে একটি অত্যন্ত শক্তিশালী ইউজার কমিউনিটি “ব্লেন্ডার আর্টিস্ট” যেখানে সারা বিশ্বের লাখো থ্রিডি আর্টিস্ট তাদের কাজ ও নলেজ শেয়ার করার মাধ্যমে একটি শক্তিশালী ইউজার কমিউনিটি গড়ে তুলেছে ।
 
৫) ২০১৩-এর জুলাই এর পরে সফটওয়্যার পাইরেসি আইন কড়াকড়ি ভাবে প্রয়োগ করার জন্য বাংলাদেশ এর ওপর আন্তর্জাতিক ভাবে চাপ প্রয়োগ করা হবে । কাজেই সামনের দিনগুলিতে পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার অনেক কঠিন হয়ে উঠবে । তখন কি আমরা কয়েক লক্ষ টাকা খরচ করবো একটি সফটওয়্যার কেনার জন্য ?
 
৬) নাকি আমরা এমন একটি ওপেন সোর্স সফটওয়্যার শেখার চেষ্টা করবো যা দিয়ে মায়া বা  থ্রিডি ম্যাক্স  ব্যবহার করে যা করা সম্ভব তার প্রায় সবই করা সম্ভব । হ্যাঁ তবে প্রতিটি সফটওয়্যারেরই নিজস্ব কিছু বৈশিষ্ট্য এবং সীমাবদ্ধতা রয়েছে ।
 
পরিশেষে বলা যেতে পারে, পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করে আমরা নিজেদের যে ক্ষতি করছি তা যেদিন বুঝতে পারব, সেদিন থেকেই আমরা হয় টাকা খরচ করে অরিজিনাল সফটওয়্যার কিনব আর সেটা যদি সম্ভব না হয় তাহলে ফ্রি-ওপেন সোর্স  সফটওয়্যার ব্যবহার শুরু করব ।

 

Comments are closed.

ওপেন সোর্স 3D ডিজাইনিং এর ভুবন "ব্লেন্ডারদেশ" এ আপনাদেরকে স্বাগতম